ফ্রি আনলিমিটেড গুগল ড্রাইভ শেয়ার্ড স্টোরেজ নিয়ে নিন

গুগোল ড্রাইভ হলো গুগলের একটি পরিষেবা যেটার মাধ্যমে ব্যবহারকারীগণ ফ্রী ক্লাউড স্টোরেজ পেয়ে থাকে। বর্তমানে বিশ্বের বড় বড় ক্লাউড স্টোরেজ সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে গুগোল ড্রাইভ অন্যতম। গুগোল ড্রাইভ এর মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা খুব সহজেই ফ্রিতেই 15gb পর্যন্ত ক্লাউড স্টোরেজ পেয়ে থাকে।ফ্রী 15 জিবি স্টোরেজ পাওয়ার জন্য ব্যবহারকারীর একটি জিমেইল একাউন্ট থাকলেই যথেষ্ট।


গুগোল ড্রাইভ এর জনপ্রিয়তা বাড়ার সাথে সাথে বেড়েছে এর চাহিদা। আপনি যদি গুগলে ফ্রি গুগল ড্রাইভ স্টোরেজ লিখে সার্চ করেন তাহলে গুগলে অনেক অনেক পোস্ট পেয়ে যাবেন।তবে এসব পোস্টের মধ্যে বেশিরভাগ মানুষই এই ফ্রি ড্রাইভ স্টোরেজের ভালো এবং খারাপ দিকগুলো উল্লেখ করেনি।


আমরা জানি গুগোল ড্রাইভ ফ্রিতে 15gb ক্লাউড স্টোরেজ দিয়ে থাকে।15gb এর বেশি স্পেস ব্যাবহারের জন্য আপনাকে গুগল ড্রাইভের মাসিক অথবা বাৎসরিক সাবস্ক্রিপশন কিনতে হবে।তো অনেকেরই মাস্টার কার্ড বা ভিসা কার্ড নেই যার কারনে গুগল ড্রাইভে স্পেস কিনে ব্যাবহার করা সম্ভব হয় না।তাই এই সমস্যার সমাধানের জন্য আজকে আপনাদের সাথে ফ্রিতে আনলিমিটেড গুগল ড্রাইভ স্টোরেজ নেওয়ার ট্রিক শেয়ার করবো।


মোবাইল দিয়েই প্রোগ্রামিং শিখুন খুব সহজেই || Programming Hero App Review


তবে এর আগে বলে নেই যে এটা যেহেতু আমরা সম্পূর্ণ ফ্রিতেই পাচ্ছি তাই এর কিছু ভালো এবং খারাপ উভয় দিকই রয়েছে।তাই এটি ব্যাবহার করার আগে অবশ্যই এর ভালো এবং খারাপ দিক দেখে তারপর বিবেচনা করে ব্যাবহার করবেন।


আর আরেকটা কথা আপনি ফ্রিতে যেখান থেকেই গুগল ড্রাইভ স্টোরেজ নেন না কেনো এর ভালো খারাপ দিক অবশ্যই থাকবে।যদি কেউ আপনাকে ফ্রিতে বা ১০০-২০০টাকায় গুগল ড্রাইভ স্টোরেজ অফার করে আর যদি আপনাকে ১০০% সিকিউরিটির শিওরিটি দেয় তাহলে সে অবশ্যই মিথ্যা বলছে।


প্রথমে এর ভালো দিকগুলো বলিঃ

১.এটা সম্পুর্ন ফ্রি।

২.মাসিক বা ইয়ার্লি কোনো চার্জ নেই।

৩.আনলিমিটেড স্টোরেজ পাবেন।

৪.যেকোনো ফাইল এখানে আপলোড করতে পারবেন।

৫.যেকোনো সাইজের (বড় বা ছোট) ফাইল রাখতে পারবেন।

৬.কাওকে জিমেইলের পাসওয়ার্ড দিতে হবে না।



এবার আসি অসুবিধাগুলোর ব্যাপারেঃ

১.এটা সম্পুর্ন সিকিউর নয়।অর্থাৎ ব্যাক্তিগত কোনো ফাইল,ছবি বা ব্যাক্তিগত স্পর্শকাতর কোনো জিনিস রাখা যাবে না।আপনি চাইলে রাখতে পারবেন তবে না রাখার পরামর্শ থাকবে।কোনো সমস্যা হলে আমরা দায়ী থাকবো না।


২.এটা যেকোনো সময় চলে যেতে পারে।অর্থাৎ এই শেয়ারড স্টোরেজ ২মাস বা ৩মাস বা এর আগে বা পরে যেকোনো সময় আপনার একাউন্ট থেকে চলে যেতে পারে।তাই দরকারি কোনোকিছু এখানে না রাখাই ভালো।আমি এটা প্রায় ৭মাসের মতো ব্যাবহার করার পর আনার একাউন্ট থেকে চলে গিয়েছিলো।


তো ভালো খারাপ দিকগুলো দেখে নিলেন।এবার আপনি এটা ব্যবহার করবেন কিনা সেটা সম্পূর্ণ আপনার উপর ডিপেন্ড করে।


ফ্রিতে বা কম টাকায় আপনারা যেখান থেকে বা যার থেকেই আনলিমিটেড গুগল ড্রাইভ স্টোরেজ নেন না কেনো উপরের ভালো খারাপ দিকগুলো অবশ্যই মাথায় রাখবেন।


তো চলুন এবার দেখে নেয়া যায় কিভাবে আনলিমিটেড ফ্রি গুগল ড্রাইভ শেয়ার্ড স্টোরেজ নিতে পারবেন।




১.প্রথমে নিচের লিংকে ক্লিক করে ওয়েবসাইটটিতে চলে যান।


Click Here


২.এরপর নিচের মতো দেখতে পাবেন 



৩.এবার একে একে ঘরগুলো পূরণ করুন।


৪.প্রথম ঘরে আপনার নাম দিয়ে দিন বা যেই নামে স্টোরেজ নিতে চান তা দিয়ে দিন।


৫.এরপর আপনি যেই জিমেইলে স্টোরেজ নিতে চান সেই জিমেইল এড্রেসটি লেখুন।


৬.এরপর নিচের ঘর থেকে যেকোনো একটা অপশন সিলেক্ট করুন।


৭.এরপর ক্যাপচাটি পূরণ করুন।


৮.সবশেষে "GET" লেখায় ক্লিক করুন।




"GET" লেখায় ক্লিক করার সাথে সাথে নিচের মতো একটি লেখা পাবেন।




ব্যাস!! আপনার কাজ শেষ।😀

🤩এবার আপনার কাঙ্খিত জিমেইল দিয় গুগল ড্রাইভে লগিন করে Shared Storage -এ গিয়ে দেখুন একটা ফোল্ডারের মতো পেয়ে যাবেন।




🤩দেখুন আমাদের দেয়া নামে একটি শেয়ার্ড স্টোরেজ চলে এসেছে।এই ফোল্ডারের ভিতরে আপনি আনলিমিটেড ফাইল আপলোড করতে পারবেন।




এটাই আপনার কাঙ্খিত আনলিমিটেড গুগল ড্রাইভ স্টোরেজ।এবার এখানে যতখুশি ফাইল রাখতে পারবেন কোনো লিমিটেশন নাই।তবে অবশ্যই উপরের ভালো এবং খারাপদিকগুলো মাথায় রাখবেন।😇

💛💛💛💛💛💛💛💛💛💛💛💛

তো এই ছিলো আজকের পোস্ট।আসা করি আপনাদের একটু হলেও উপকারে আসবে।Tricklancer.xyz  এর সাথেই থাকবেন।

ধন্যবাদ।💛

0 Comments

Post a Comment

Post a Comment (0)

Previous Post Next Post